You are currently viewing রবীন্দ্র সংগীত শিল্পী রেজওয়ানা চৌধুরী বন্যার জীবনী ও গান
রেজওয়ানা চৌধরী বন্যা

রবীন্দ্র সংগীত শিল্পী রেজওয়ানা চৌধুরী বন্যার জীবনী ও গান

আমরা আজকে এই লেখাতে আলোচনা করব উপমহাদেশের বিখ্যাত রবীন্দসংগীত শিল্পী রেজওয়ানা চৌধরী বন্যার জীবনী ও তার গান নিয়ে। আপনাদের অনেকেরই আগ্রহের কেন্দবিন্দুতে ছিল এই বরেণ্য শিল্পী সম্পর্কে জানার। তাই আপনাদের আগ্রহের জন্যই আমরা এই গুনী সংগীত শিল্পীর বিষয়ে বিস্তারিত জানাব। আপনারা সম্পর্ণ লেখাটি পড়লে এই বিখ্যাত রবীন্দসংগীত শিল্পীর সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পারবেন।

রেজওয়ানা চৌধুরী বন্যা একজন গুণী রবীন্দ্রসংগীত শিল্পী, গান দিয়ে যিনি দেশের জন্য সুনাম বয়ে এনে নিজেকে পরিণত করেছেন উপমহাদেশের একজন প্রখ্যাত রবীন্দ্রসঙ্গীত শিল্পীতে। তার ঘরানার সংগীতের একজন বহুমুখী প্রতিভা হিসাবে ব্যাপকভাবে সমাদৃত হয়েছে বিশ্বব্যাপী এবং তার কণ্ঠে বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর এর গান সবসময়ই পেয়েছে অন্যরকম উচ্চতা। দীর্ঘদিন ধরে এই সঙ্গীত সাধনার মাধ্যমে নিজেকে নিয়ে গেছে অন্য উচ্চতায়, তাই তাকে রবীন্দ্রসঙ্গীতের একটি আস্ত স্কুল হিসাবেও বিবেচনা করা যায়।

রেজওয়ানা চৌধুরী বন্যা’র জন্ম

১৯৫৭ সালের ১৩ জানুয়ারি রংপুর জেলায় জন্মগ্রহণ করেন দেশের প্রখ্যাত রবীন্দ্রসঙ্গীত শিল্পী রেজওয়ানা চৌধুরী বন্যা। জনপ্রিয় এই সঙ্গীত তারকার বাবা মাজহার উদ্দিন খান ও মাতা ইসমাত আরা খান ছিলেন কাকলী উচ্চ বিদ্যালয়ের উপাধ্যক্ষ। ব্যক্তিগত জীবনে রেজওয়ানা চৌধুরী বন্যা একজন বিবাহিত নারী এবং তার এক মেয়ে প্রিয়দর্শিনী ও এক ছেলে অর্ক আছে। তার ছেলে মেয়ে দুজনেই দেশের বাহিরে লেখাপড়া শেষ করে সেখানেই কর্মরত। রেজওয়ানা চৌধুরী বন্যার স্বামী জি এইচ চৌধুরী।

রেজওয়ানা চৌধুরী বন্যা’র শিক্ষা জীবন

রেজওয়ানা চৌধুরী বন্যা দেশের সঙ্গীত অঙনের দুপ্রতিষ্ঠিত প্রতিষ্ঠান ছায়ানট থেকে রবীন্দ্র সংগীতের ওপর সর্বোচ্চ ডিগ্রি অর্জন করে। পরর্বতীতে তিনি ভারতের বিখ্যাত প্রতিষ্ঠান বিশ্বভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হন। বিশ্বভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হবার পর তিনি শিক্ষক হিসাবে পান বরেণ্য শিক্ষক শান্তিদেব ঘোষ, কণিকা বন্দ্যোপাধ্যায়, নীলিমা সেন, এবং অশেষ চন্দ্র বন্দ্যোপাধায় কে। ভারত থেকে দেশে ফিরে তিনি অর্থনীতি বিষয়ে পড়াশোনা করেন। পাশাপাশি তিনি বুলবুল ললিতকলা একাডেমীতে ভর্তি হন। ১৯৭১ সালে বাংলাদেশে পাকিস্তানিদের সাথে মহান মুক্তিযুদ্ধ শুরু হয়ে গেলে তার পড়াশোনা সংক্ষিপ্ত করতে বাধ্য হন।

রেজওয়ানা চৌধুরী রবীন্দ্র সংগীত ছাড়াও ধ্রুপদী, টপ্পা ও কীর্তন গানের ওপরও সফলভাবে শিক্ষা অর্জন করেন। কেবল গান গাওয়া নয় একজন ভালো লেখক হিসাবেও সুনাম রয়েছে বন্যার। তাছাড়া তার যন্ত্রের ওপরও ভাল দখল আছে এবং তিনি হারমোনিয়াম ও এস্রাজ বাজাতে পারেন।

রেজওয়ানা চৌধুরী বন্যা’র কর্ম জীবন

পেশাজীবনে তিনি দীর্ঘদিন ধরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের নাট্যকলা ও সংগীত বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক হিসাবে কাজ করছেন এবং নৃত্যকলা বিভাগের চেয়ারপার্সন হিসেবেও দায়িত্ব পালন করছেন। বাংলাদেশের সবার প্রিয় সঙ্গীত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সুরের ধারা ১৯৯২ সালে তার হাতেই গড়া। কর্ম জীবনে তিনি রবীন্দ্রনাথ ও রবীন্দ্রসংগীত নিয়ে তিনটি বই লিখেছেন।
• রবীন্দ্রনাথ: গানের নানা দিক
• গানের ভেলায় বেলা অবেলায় : নির্বাচিত রবীন্দ্রসঙ্গীত স্বরলিপি
• ছোটদের নির্বাচিত রবীন্দ্রসঙ্গীতের স্বরলিপি

রেজওয়ানা চৌধুরী বন্যা’র সংগীতজীবন

রেজওয়ানা চৌধুরী বন্যা’র শিক্ষাগ্রহণ শেষ হবার পর থেকেই সংগীতে প্রবেশ করেন। নির্ভুল উচ্চারণ এবং সবচেয়ে কঠিন ও অপ্রচলিত গানগুলোও গাইবার কারণে তিনি সকলের কাছে হয়ে ওঠেন আইডল। দীর্ঘ এই সঙ্গীত জীবনে করেছন অসংখ্য গান। রেজওয়ানা চৌধুরী গানের দুই শতাধিক সিডি রয়েছে দেশে ও দেশের বাহিরে। দেশে ও দেশের বাহিরে ভারতে এ পর্যন্ত ২০টির বেশি অ্যালবাম প্রকাশিত হয়েছে।
প্রকাশিত অ্যালবাম
• স্বপ্নের আবেশে
• সকাল সাঝে
• ভোরের আকাশে
• লাগুক হাওয়া
• আপন পানে চাহি
• প্রাণ খোলা গান
• এলাম নতুন দেশে
• সুদূরের মিতা
• মাটির ডাক
• কালের সাথী
• গেঁথেছিনু অঞ্জলি
• মনের মাঝে যে গান বাজে
• মোর দরদিয়া
• সুরের আসনখানি
• সুরের খেয়া
• পাতার ভলা ভাষাই
• শ্রাবণ তুমি
• ছিন্নপত্র
• কবি প্রণাম
• বাজে রম্যবীণা

রেজওয়ানা চৌধুরী বন্যা’র পুরস্কার ও সম্মাননা

বহু পুরস্কার ও সম্মাননায় সম্মানিত হয়েছেন দেশের গুণী সঙ্গীত শিল্পী রেজওয়ানা চৌধুরী তার সঙ্গীতের কারণে। এগুলোর মধ্যে বাংলাদেশের জাতীয় এবং সর্বোচ্চ বেসামরিক পুরস্কার “স্বাধীনতা পুরস্কার, ফিরোজা বেগম স্মৃতি স্বর্ণপদক, আনন্দ সংগীত পুরস্কার, সিটিসেল-চ্যানেল আই মিউজিক অ্যাওয়ার্ডস, গানে গানে গুণীজন সংবর্ধনা ও ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সরকারের সর্বোচ্চ পুরস্কার ‘বঙ্গভূষণ’পদক উল্লেখযোগ্য।

রেজওয়ানা চৌধুরীর সম্পর্কে আপনার মতামত জানান

বাংলাদেশে ও দেশের বাহিরের বিভিন্ন দেশে তার অনেক ভক্ত ও অনুরাগী রয়েছে। দেশ ও বিদেশের শ্রোতারা তার গান শুনে মুগ্ধ হয়ে থাকে। তার সুমধুর কন্ঠের পাগল অনেক ভক্ত। এই দেশ বরেণ্য শিল্পী রেজওয়ানা চৌধরী বন্যা সম্পর্কে আপনার মার্জিত মতামত আমাদের পাঠাতে পারেন কমেন্টের মাধ্যমে। আপনাদের মার্জিত মতামত আমাদের লেখতে সাহস যোগাবে। তাছাড়া আপনার অন্য কোন শিল্পী সম্পর্কে জানতে চান আমাদের জানান।